সর্বশেষ:
ঢাকা, ডিসেম্বর ৪, ২০২১, ২০ অগ্রহায়ন ১৪২৮

cosmicculture.science: বিজ্ঞানকে জানতে ও জানাতে
শুক্রবার ● ১ মে ২০২০
প্রথম পাতা » মাথায় কত প্রশ্ন » আমরা যদি সূর্যের ওপর ১ ট্রিলিয়ন বালতি পানি ঢেলে দেই, তাহলে কী ঘটবে?
প্রথম পাতা » মাথায় কত প্রশ্ন » আমরা যদি সূর্যের ওপর ১ ট্রিলিয়ন বালতি পানি ঢেলে দেই, তাহলে কী ঘটবে?
৩৪১ বার পঠিত
শুক্রবার ● ১ মে ২০২০
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

আমরা যদি সূর্যের ওপর ১ ট্রিলিয়ন বালতি পানি ঢেলে দেই, তাহলে কী ঘটবে?

১ ট্রিলিয়ন বালতি বা ১০ ঘন কিলোমিটার পানির সূর্যের পৃষ্ঠতলের সংস্পর্শে আসা মাত্রই আয়নিত হয়ে হাইড্রোজেন ও অক্সিজেনে পরিণত হবেধরে নিচ্ছি প্রতিটি বালতির পানি ধারণক্ষমতা ১০ লিটার বা ০.০১ ঘনমিটার। তাহলে ১ ট্রিলিয়ন বালতি ভরতে আমাদের ১ হাজার কোটি ঘন মিটার বা ১০ ঘন কিলোমিটার পানির প্রয়োজন হবে।

বিজ্ঞানীদের মতে পৃথিবীতে ৩২৬০ লক্ষ ট্রিলিয়ন গ্যালনেরও অধিক পানি রয়েছে। তার মানে ১ ট্রিলিয়ন বালতি ভরতে যে পানি প্রয়োজন তা সমগ্র পৃথিবীতে ধারণকৃত মোট পানির ১৩৮,৫৯৯,৯০৫ ভাগের ১ ভাগ মাত্র। তবে সূর্যের আকৃতি এতোই বিশাল যে তার মধ্যে ১৩ লক্ষ পৃথিবী অনায়াসে জায়গা করে নিতে পারে।

কাজেই আমরা সূর্যে যে পরিমাণ পানি ঢালার হিসেব করছি তা মূলত সূর্যের কাছে একটি ফোঁটার মতো। তুলনা করলে বলা যায়, পৃথিবীর মিঠাপানির সবচেয়ে বড়ো আধার বৈকাল হ্রদের আয়তন ২৩,৬১৫ ঘন কিলোমিটার বা ২,৩৬১.৫ ট্রিলিয়ন দশ লিটারের বালতির সমান।

ফলে ১ ট্রিলিয়ন বালতি বা ১০ ঘন কিলোমিটার পানির সূর্যের পৃষ্ঠতলের সংস্পর্শে আসা মাত্রই আয়নিত হয়ে হাইড্রোজেন ও অক্সিজেনে পরিণত হবে। এমনকি আপনি যদি ১০ ট্রিলিয়ন বা ১০০ ট্রিলিয়ন বালতি পানি ঢালেনও, তাতে ফলাফল একই দাড়াবে।

কার্বনের গলণাঙ্ক ক্রম ৪৩০০-৪৮০০ ডিগ্রী সে., যা পৃথিবীর অভ্যন্তরে ১০০০-১৪০০ ডিগ্রী সে. এর নিচে থাকে। ট্যান্টালাম হফনিয়াম কার্বাইড (সর্বোচ্চ গলণাঙ্কের বাইনারি যৌগ) ৩৮০০ ডিগ্রী সে. তাপমাত্রার ওপরে গলে। ঘুরেফিরে, সূর্যের পৃষ্ঠের তাপমাত্রা ৫৫০০ ডিগ্রি সে.। যদিও ডার্ক স্পট বলে চিহ্নিত ঠান্ডা অঞ্চরের তাপমাত্রা ৩৫০০ ডিগ্রি সে. এর মতো।

অর্থাৎ, তাত্ত্বিকভাবে পৃথিবীর কোন কোন পদার্থ রয়েছে যা সূর্যপৃষ্ঠের তাপমাত্রাকে সহ্য করতে পারে এবং গলে যায় না। তবে এখানে উল্লেখযোগ্য বাধা রয়েছে। সূর্যের চারপাশে করোনা নামে একটি ক্ষেত্র রয়েছে (বায়ুমণ্ডলের স্তরগুলি), যা প্রায়শই সূর্যগ্রহণের সময় দেখা যায়। করোনা সূর্যের পৃষ্ঠের চেয়ে অনেক বেশি উষ্ণ। এর তাপমাত্রা ১লক্ষ ডিগ্রী সে. পর্যন্ত হতে পারে এবং লক্ষ লক্ষ কিলোমিটার অবধি বিস্তৃত হতে পারে।

কাজেই ১ ট্রিলিয়ন বালতি পানি আমাদের কাছে বিশাল হলেও সূর্যের কাছে তা একেবারে নস্যি।





আর্কাইভ

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)
ব্ল্যাকহোল থেকে আলোকরশ্মির নির্গমন! পূর্ণতা মিলল আইনস্টাইনের সাধারণ আপেক্ষিকতা তত্ত্বের
প্রথম চন্দ্রাভিযানের নভোচারী মাইকেল কলিন্স এর জীবনাবসান
মঙ্গলে ইনজেনুইটি’র নতুন সাফল্য
শুক্র গ্রহে প্রাণের সম্ভাব্য নির্দেশকের সন্ধান লাভ
আফ্রিকায় ৫০ বছর পরে নতুনভাবে হস্তিছুঁচোর দেখা মিলল
বামন গ্রহ সেরেসের পৃষ্ঠের উজ্জ্বলতার কারণ লবণাক্ত জল
রাতের আকাশে নিওওয়াইস ধূমকেতুর বর্ণিল ছটা,আবার দেখা মিলবে ৬,৭৬৭ বছর পরে!
বিশ্ব পরিবেশ দিবস ২০২০
মহাকাশে পদার্পণের নতুন ইতিহাস নাসার দুই নভোচারী নিয়ে স্পেসএক্স রকেটের মহাকাশে যাত্রা
ক্রিকেটের ডাকওয়ার্থ লুইস পদ্ধতি বা বৃষ্টি আইনের যুগ্ম প্রবক্তা গণিতবিদ টনি লুইস আর নেই