সর্বশেষ:
ঢাকা, আগস্ট ১৫, ২০২২, ৩১ শ্রাবণ ১৪২৯

cosmicculture.science: বিজ্ঞানকে জানতে ও জানাতে
বুধবার ● ৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৪
প্রথম পাতা » প্রাণীবিজ্ঞান » শারীরতত্ত্ব- সবাই পড়ো - ব. সেরগেইভ
প্রথম পাতা » প্রাণীবিজ্ঞান » শারীরতত্ত্ব- সবাই পড়ো - ব. সেরগেইভ
৩৩৮ বার পঠিত
বুধবার ● ৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৪
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

শারীরতত্ত্ব- সবাই পড়ো - ব. সেরগেইভ

শারীরতত্ত্ব- সবাই পড়ো - ব. সেরগেইভ
তাম্রলিপি কর্তৃক প্রকাশিত বাংলা অনুবাদ সংস্করণ সম্পাদনা
বাংলা অনুবাদ সংস্করণ সম্পাদনা: আসিফ
প্রকাশকাল: ফেব্রুয়ারি ২০১৪
মূল্য: ৩০০ টাকা
পৃষ্ঠা: ২৬৪
প্রচ্ছদ: যোয়েল কর্মকার
ISBN: 984-70096-0245-0

‘শারীরতত্ত্ব- সবাই পড়ো’ বইটিতে লেখক ব. সেরগেইভ বিভিন্ন প্রাণীর কথা বলেছেন। চিরচেনা নিজের শরীরের বিভিন্ন অঙ্গের বর্ণনা দিতে গিয়ে শরীরের সাথে যুক্ত পরজীবি প্রাণিদের কথা এনেছেন। সেখান থেকে পুরো প্রাণিজগৎটাই চোখের সামনে চলে এসেছে। নিম্নশ্রেণি থেকে উচ্চশ্রেণির প্রাণিদের অঙ্গগুলোর বিকাশের কথা বলেছে। এসব বর্ণনা দিতে গিয়ে লেখক একটা প্রশ্ন খুব স্বাভাবিকভাবে ছুড়ে দিয়েছেন। বিশেষত স্তন্যপায়ীদের মতো উচ্চশ্রেণীর প্রাণীদের প্রজননের ক্ষেত্রে সর্বদা জোড়া অর্থাৎ দুটো কেন চাই? অবশ্য কিছু ব্যাখ্যাও তিনি দিয়েছেন।
ব.সেরগেইভ বইটি আরম্ভ করেছেন আমাদের চারপাশের খুবই সহজলভ্য তরল জল দিয়ে। পৃথিবীর তিনভাগের দুভাগ জল। অথচ সেই জল পৃথিবীর পরমাশ্চর্য এক বস্তু। মানব শরীরে শতকরা একাত্তর ভাগই জল। বরফগলা জল শরীরের জন্য যে দারুণ উপকারী তা বিস্তারিত আলোচনা এই বইয়ে করেছেন লেখক। কিন্তু বাইরের গ্রহউপগ্রহে তরল জল এত সহজ নয়। মহাকাশযানগুলো এই তরল জল থাকা গ্রহের সন্ধানে ঘুরে বেড়োচ্ছে। পুরো বইটিতে এককোষি থেকে বহুকোষি প্রাণীদের নিয়ে বহুভাবে বর্ণনা করা হয়েছে। একটা আরেকটার ওপর কী প্রবলভাবে নির্ভরশীল। দৈনন্দিন জীবনের অভিজ্ঞতা ও পর্যবেক্ষণকেই কাজে লাগিয়ে এই বইটি লেখা হয়েছে যা আমাদের ভাবনাকে আরও সমৃদ্ধ করবে নিঃসন্দেহে।





আর্কাইভ

মহাবিশ্বের প্রারম্ভিক অবস্থার খোঁজেজেমস ওয়েব স্পেস টেলিস্কোপের প্রথম রঙীন ছবি প্রকাশ
ব্ল্যাকহোল থেকে আলোকরশ্মির নির্গমন! পূর্ণতা মিলল আইনস্টাইনের সাধারণ আপেক্ষিকতা তত্ত্বের
প্রথম চন্দ্রাভিযানের নভোচারী মাইকেল কলিন্স এর জীবনাবসান
মঙ্গলে ইনজেনুইটি’র নতুন সাফল্য
শুক্র গ্রহে প্রাণের সম্ভাব্য নির্দেশকের সন্ধান লাভ
আফ্রিকায় ৫০ বছর পরে নতুনভাবে হস্তিছুঁচোর দেখা মিলল
বামন গ্রহ সেরেসের পৃষ্ঠের উজ্জ্বলতার কারণ লবণাক্ত জল
রাতের আকাশে নিওওয়াইস ধূমকেতুর বর্ণিল ছটা,আবার দেখা মিলবে ৬,৭৬৭ বছর পরে!
বিশ্ব পরিবেশ দিবস ২০২০
মহাকাশে পদার্পণের নতুন ইতিহাস নাসার দুই নভোচারী নিয়ে স্পেসএক্স রকেটের মহাকাশে যাত্রা