সর্বশেষ:
ঢাকা, নভেম্বর ২৭, ২০২২, ১৩ অগ্রহায়ন ১৪২৯

cosmicculture.science: বিজ্ঞানকে জানতে ও জানাতে
রবিবার ● ১০ নভেম্বর ২০১৩
প্রথম পাতা » বিজ্ঞান সংবাদ: জীববিদ্যা ও বিবর্তন » ওরাংওটাং পরবর্তী যাত্রাপথ নিয়ে পরিকল্পনা করতে সক্ষম
প্রথম পাতা » বিজ্ঞান সংবাদ: জীববিদ্যা ও বিবর্তন » ওরাংওটাং পরবর্তী যাত্রাপথ নিয়ে পরিকল্পনা করতে সক্ষম
৩৫৬ বার পঠিত
রবিবার ● ১০ নভেম্বর ২০১৩
Decrease Font Size Increase Font Size Email this Article Print Friendly Version

ওরাংওটাং পরবর্তী যাত্রাপথ নিয়ে পরিকল্পনা করতে সক্ষম

ওরাংওটাং পরবর্তী যাত্রাপথ নিয়ে পরিকল্পনা করতে সক্ষমতথ্যানুসন্ধানে দেখা গেছে পুরুষ ওরাংওটাংরা তাদের যাত্রাপথ একদিন আগ থেকে পূর্বনির্ধারণ করে অন্য ওরাংওটাংদের কাছে সংবাদ প্রদান করতে পারে। জুরিখ বিশ্ববিদ্যালয়ের নৃতত্ত্ববিদরা বন্য ওরাংওটাংদেরকে এই পরিকল্পনা ক্ষমতা দ্বারা স্ত্রীলিঙ্গকে আকর্ষণ এবং পুরুষ প্রতিদ্বন্দ্বী প্রক্ষিপ্ত করা লক্ষ্য করেছেন।
দীর্ঘকাল ধরে ধারণা করা হত শুধুমাত্র মানুষ ভবিষ্যৎ পদক্ষেপ পূর্বানুমান করতে পারে, পক্ষান্তরে পশুদেরকে বর্তমান অবস্থান ও অবস্থা চিন্তাধারার মধ্যে ভাবা হত। কিন্তু সম্প্রতি কিছু পরীক্ষার পর বড় বনমানুষদেরকে অতীত ঘটনা মনে রেখে ভবিষ্যৎ চাহিদা মেটানোর জন্য পরিকল্পনা করতে দেখা গেছে। কয়েক বছর ধরে জুরিখ বিশ্ববিদ্যালয়ের এই দলটি সুমাত্রার গ্রীষ্মমন্ডলীয় জলাভূমির মধ্যে থেকে বন্য বনমানুষদের অনুসরণের মাধ্যমে এই দক্ষতার সূত্র অনুসন্ধান করেছেন।
ওরাংওটাংরা সাধারণত একা বন ভ্রমণ করলেও নিজেদের মধ্যে সম্পর্ক বজায় রাখে। পূর্ণবয়স্ক পুরুষরা কখনো কখনো তাদের গণ্ডদেশের থলি দিয়ে বৃহৎ চোঙ পরিমাণ শব্দে ‘লম্বা ডাক’ দিয়ে থাকে। ডাকগুলো পুরুষ আর মহিলা শ্রোতার উপর কিছুটা বিপরীত প্রভাব ফেলে। মহিলা ওরাংওটাং একটি ক্ষীণ ডাক শোনার পর সে দিকে যাওয়ায় প্রবণ হয়। অপরদিকে অপ্রাপ্ত বয়সের পুরুষ ওরাংওটাং শব্দটি শোনা মাত্র ব্যতিব্যস্ত হয়ে চলে যায়।
গবেষক ক্যারেল ভ্যান স্কাইক বলেন, “আগে থেকে জানার ফলে, সে যে সকল স্থানে যাতায়াত করবে সে দিকে ডাক দেওয়াটাই বোধগম্য।” এই ধারনার সাথে সামাঞ্জস্য রেখে গবেষক দল লক্ষ্য করলেন পুরুষরা তাদের ডাকের প্রায় কাছাকাছি পথ ধরে যাত্রা করেছিল। তারা জানান, সন্ধ্যায় বিশ্রাম স্থান তৈরির সময়ে দেওয়া দীর্ঘ ডাক পরের সন্ধ্যা পর্যন্ত ভ্রমন পথ আরও নির্ভরশীল হারে পূর্বানুমান করে থাকে। এছাড়াও পরুষরা নতুন লম্বা ডাকের মাধ্যমে প্রায়ই ভ্রমন পথ পরিবর্তনের ঘোষণা দিয়ে থাকে এবং গবেষকরা লক্ষ্য করলেন, যদিও সকাল বেলায় নতুন কোন দীর্ঘ ডাক দেওয়া হয়নি তবুও অন্যান্য ওরাংওটাং পূর্ববর্তী সন্ধায় দেওয়া লম্বা ডাকের সঠিক প্রতিক্রিয়া দেখায়।
গবেষকরা মনে করেন ওরাংওটাং বর্তমান অবস্থা এবং অবস্থান চিন্তাধারার মধ্যে বসবাস করে না, বরং ভবিষ্যৎ কল্পনা এমনকি পরিকল্পনা জ্ঞাপনে সক্ষম। বলেন ভ্যান স্কাইক এর মতে, এক অর্থে তারাও কিছুটা আমাদের মত হয়েছে,”

সম্পাদনা: ফিবা মণ্ডল
সূত্র: পিএলওএস ওয়ান জার্নাল
২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৩





আর্কাইভ

মহাবিশ্বের প্রারম্ভিক অবস্থার খোঁজেজেমস ওয়েব স্পেস টেলিস্কোপের প্রথম রঙীন ছবি প্রকাশ
ব্ল্যাকহোল থেকে আলোকরশ্মির নির্গমন! পূর্ণতা মিলল আইনস্টাইনের সাধারণ আপেক্ষিকতা তত্ত্বের
প্রথম চন্দ্রাভিযানের নভোচারী মাইকেল কলিন্স এর জীবনাবসান
মঙ্গলে ইনজেনুইটি’র নতুন সাফল্য
শুক্র গ্রহে প্রাণের সম্ভাব্য নির্দেশকের সন্ধান লাভ
আফ্রিকায় ৫০ বছর পরে নতুনভাবে হস্তিছুঁচোর দেখা মিলল
বামন গ্রহ সেরেসের পৃষ্ঠের উজ্জ্বলতার কারণ লবণাক্ত জল
রাতের আকাশে নিওওয়াইস ধূমকেতুর বর্ণিল ছটা,আবার দেখা মিলবে ৬,৭৬৭ বছর পরে!
বিশ্ব পরিবেশ দিবস ২০২০
মহাকাশে পদার্পণের নতুন ইতিহাস নাসার দুই নভোচারী নিয়ে স্পেসএক্স রকেটের মহাকাশে যাত্রা